ভালো বাংলা গল্প। অপ্রকাশিত প্রেম। 1 awesome bengali story.

Spread the love

নতুন একটি ভালো বাংলা গল্প, ছাড়পত্রে থাকছে। এই গল্পটিতে একটু খুঁজে পাবেন অপ্রকাশিত প্রেমের ছোঁয়া।।

ভালো বাংলা গল্প- ‘মালী’

বাবা মায়ের একমাত্র আদরের মেয়ে পাখি , ছোট থেকেই খুব যত্নে মানুষ হওয়া তার । তার সব ইচ্ছে চাওয়া পাওয়া গুলো তার বাবা মা নির্দ্বিধায় পূরণ করে এসেছে । তাই সে সবসময় পাওয়াতেই বিশ্বাসী হয়ে উঠেছে , হারানো তে নয় । সবে মাত্র পড়াশোনা কমপ্লিট করে তার বাবার কোম্পানিতে ম্যানেজার পোস্ট এ join করেছে। নতুন বাড়িতে সে একা থাকে । আর তার ছোট থেকেই খুব শখ গাছ লাগানো, আর সেগুলোর দেখা শোনা করার । কিন্তু কাজের চাপে সে তার লাগানো গাছ গুলোর যত্ন নিতে পারছিলো না। তাই ঠিক করে একজন বৃদ্ধ মালী কে রাখবে তাহলে তার বাবা মায়েরও কম বয়স্ক মেয়ে কে নিয়ে চিন্তা হবে না আর সেও বৃদ্ধ ব্যাক্তির ওপর সহজেই বিশ্বাস রাখতে পারবে ।

এই ভেবে সে কাগজে বিজ্ঞাপন দেয় , পরের দিন তার বাড়িতে বেশ কয়েকটি বৃদ্ধ ব্যক্তি আসে তাদের মধ্যে একজন এর চুল দাড়ি একেবারে পেকে সাদা হয়ে গেছে তা দেখে ও ভাবে এই মরন্তিকালের বুড়োটাকে কাজে রাখলে না থাকবে চুরির ভয় আর না থাকবে বাবা মায়ের ভয় তাই একেই রাখা যাক । দিনের পর দিন পেরোতে থাকে মালি খুব মন দিয়ে গাছের খেয়াল রাখে অন্যদিকে পাখি ও নিজের কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকে।

এর মধ্যেই একদিন ওর এক কলিক ওকে বলে ” পাখি পাশের এক রেস্টুরেন্ট এ যাবে ,খুব ভালো কফি হয় ওখানে, নতুন নতুন কাজে join করেছে সে, তাই মানা করতে না পেরে তার সাথে যায়। তারা যে রেস্টুরেন্টে যায় তার পাশের রেস্টুরেন্টে গানের আওয়াজ তারা শুনতে পায়, পাখি মনে মনে ভাবে কি মধুর কণ্ঠ , এমন সুন্দর গলা জীবনে সে কোনোদিনও এত কাছের থেকে শোনেনি। গান শেষ হয়ে যায় তারপর হটাৎ করে তার কলিক এর ডাকে তার মোহভঙ্গ হয় । সে ভাবে হয়তো এতক্ষন অন্য কোনো দুনিয়াতে ছিল ।

ভালো বাংলা গল্প
ভালো বাংলা গল্প

এর পর থেকে পাখির অভ্যেস হয়ে যায় তার ওই কলিক্ এর সাথে এসে রোজ রোজ এই গান শোনা কিন্তু কোনোদিনও তার ভাগ্যে ওই শিল্পীর দেখা মেলে না । সে গান শুনে কাছে যাবার আগেই শিল্পীটি যেন কর্পূরের মত উবে যায়। এবার সে একদিন ঠিক করে শিল্পীর কাছে গিয়ে তাকে তার মনের কথা খুলে বলবে, আর এত বড় কোম্পানির মালিকের মেয়ে যে কিনা নিজেও ম্যানেজার তাকে ওই সামান্য রেস্টুরেন্ট এর শিল্পী মানা করতে পারবে না। এসব অলীক কল্পনা করতে করতে এক গুচ্ছ গোলাপ নিয়ে সন্ধ্যে বেলায় ওই রেস্টুরেন্ট এর দিকে রওনা দেয়। শিল্পীর গান শুরুর আগেই সে তার সামনে গিয়ে উপস্থিত হয়, অবাক হয়ে যায় পাখি, এই চেহারা তো তার খুব চেনা, যেন প্রতিদিন এই চেহারা দিয়েই তার দিন শুরু হয়।

পাখির মনে পড়ে এই মুখের সাথে সামান্য সাদা চুল আর দাড়ি লাগিয়ে দিলে তো ঠিক আমার কাজের মালীর মত লাগবে । এসব ভেবে ও চিৎকার করে ওঠে । ইতিমধ্যে ওই শিল্পী বলে এই যে ম্যাডাম কোনো কাজ আছে কি আপনার? নইলে দয়া করে সামনেটা ছাড়ুন। আমাকে আমার কাজ করতে দিন । পাখি সামনে থেকে সরে যায়। আর ভাবে তার মানে নিশ্চই সিনেমার মতো ঘটছে কিছু তার জীবনের সাথে । ওই মালী এই, এই শিল্পী । আর সে আমায় মিথ্যা বলছে ,আরো ভাবে যে তাহলে কি ও আমায় ভালোবাসে আগের থেকেই তাই আমার জন্য এসব করছে ।

পড়ুনঃ- বড় হাসির গল্প- এ কেমন গুরুসেবা!! 

এরকম হাজারো জল্পনা – কল্পনা করতে করতে বাড়ি ফেরে । আর সিদ্ধান্ত নেয় “এবার রহস্যের উদঘাটন আমাকেই করতে হবে। আমি নিজে ওই মালীর ওপর নজর রাখবো”। পরের দিন মালীকে বলে শোনো দাদু আমি কিছুদিন ছুটি নিয়েছি তাই আমি সারাদিন বাড়িতেই থাকবো আর আমি চাই তোমার মত একজন ভালো মানুষ যে এত ভালো গাছের খেয়াল রাখে , তার খেয়ালও আমি কিছুদিন রাখব। মালী তো অবাক, হঠাৎ করে এই দাম্ভিক মেয়ের কি হলো, সে কেন এমন ব্যবহার করছে !পাখি লক্ষ্য করেছে বিকেল হলেই মালি আর পাখির বাড়িতে থাকে না । সে না বলেই কোথায় যেন বেরিয়ে পড়ে ,আর রাত ৯ টার পর বাড়ি ফেরে।

কদিন লক্ষ্য করার পর পাখির সন্দেহ আরো প্রবল ভাবে বেড়ে যায় । এবার ও সিদ্ধান্ত নেয় বুড়ো বিকেলে বেরিয়ে গেলেই ও বুড়োকে follow করবে। সেভাবেই একদিন পাখি মালিকে ধাওয়া করছিলো কিন্তু হঠাৎ করে সামনে একটা গাড়ি আসার পর মালী উধাও হয়ে যায় আর পাখি তাকে দেখতে পায়না। পরের দিন আবার পাখি তার পিছু নেয়, আজ আর সে দিক ভ্রষ্ট হয় না । সে দেখে মালী একটা পুরনো দিনের জীর্ণ বাড়িতে প্রবেশ করছে, তা দেখে পাখি ও ঢোকে সেই বাড়িতে । সে তো ঢুকে যা দেখে তাতে তার পায়ের মাটি সরে যাওয়ার মত অবস্থা হয় ।

অপ্রকাশিত প্রেম
ভালো বাংলা গল্প অপ্রকাশিত প্রেম

বাড়িটির ভেতর বেশ পরিষ্কার আর ঢুকতেই সামনের দেয়াল ভর্তি তার ছবি, ছোট থেকে বড়ো হওয়া অব্দি তার প্রায় ৫০ টির মত ছবি দেয়াল এ বাঁধিয়ে টাঙানো আছে । পাখি একদম sure হয়ে যায়, ওই মালী এই সেই শিল্পী আর এটাও ভেবে নেয় মালী হয়তো ছোট থেকেই পাখি কে খুব ভালোবাসে, এসব ভেবে অবাক এর সাথে আনন্দিত ও হয় খুব। কিন্তু আচমকাই কে যেন তাকে পেছন থেকে ডেকে বলে দিদিভাই আমি জানতাম তুই ঠিক একদিন আমায় ধরে ফেলবি । এটা শুনে পাখি আরো অবাক হয়, কারণ এই ডাক তো তার দাদুর, তার দাদুই একমাত্র তাকে এভাবে ডাকতো। আর দাদু তো ২০ বছর আগে মারা গেছে । তাহলে এটা কে?

পড়ুনঃ-'আমার প্রেমের গল্প' 

পাখি ভয়ে ভয়ে পেছন ফিরে দেখে ,তার দাদু ঠিক সেভাবেই পোশাক পরে দাড়িয়ে আছে যেভাবে সে ছোটবেলায় তার দাদুকে দেখতে অভ্যস্ত ছিল।পাখি কাঁপা গলায় বলে দাদু তুমি বেঁচে আছো? দাদু উত্তর দেয় হুমম শুধু মাত্র তোমার জন্য দিদিভাই আজও এ বুড়ো বেঁচে আছে। দাদু পাখি কে সব খুলে বলে- কিভাবে তার ছেলের ভুলের জন্য তার কোম্পানি ডুবতে বসেছিল, তখন সে তার কোম্পানি বাঁচানোর জন্য নিজের মরার মিথ্যে খবর ছড়িয়ে দেয়। আর সে যে মৃত তা সবাই জানার পর তার ছেলেকে সাহায্য করে আবার তার কোম্পানি তার ছেলের হাত ধরে উচ্চ শিখরে পৌঁছায়। এখনো অব্দি পাখির দাদু জীবিত সেটা কেউ জানে না।

তিনি বারবার ইচ্ছে সত্বেও তার আদরের নাতনির কাছে যেতে পারতেন না। তাই যেদিন ওই মালির বিজ্ঞাপন টা দেখেন সেদিন এই নিজের বেশ ভুসা পরিবর্তন করে নাতনির কাছে মালির সাজে গিয়ে উপস্থিত হন । এসব এর পর দাদু নাতনির মিলন তো হয় ,কিন্তু পাখির মনে পড়ে তাহলে ওই শিল্পী কে? সে দাদুকে জিজ্ঞাসা করে দাদু ওই শিল্পী টা কে তাহলে ? দাদু বলে কোন শিল্পী আমি তো কোনো শিল্পীকে চিনিনা। এটা শুনে সে বলে “দাদু তাহলে তুমি আর ওই শিল্পী আলাদা মানুষ তারমানে ও আমায় চেনেনা “।

awesome bengali story

এরপর সে দাদুকে তার জন্য অপেক্ষা করতে বলে ছুট্টে যায় ওই রেস্টুরেন্ট এর দিকে কিন্তু পৌঁছে দেখে সেখানে কোনো শিল্পী গান গায়নি আর আজ । রেস্টুরেন্ট এর স্টাফ দের জিজ্ঞাসা করলে জানতে পারে, যে এখানে গান গাইতো তার গান শুনে এক producer খুব খুশি হয়েছেন তাই শিল্পটিকে নিয়ে তিনি মুম্বাই পাড়ি দিয়েছেন । পাখি কদিন মালির ওপর নজর রাখার জন্য এখানে আসেনি, তাই একটু আফসোস বোধ করে ।

কিন্তু মনে মনে বলে শিল্পী বাবু তোমার রহস্য উদঘাটন করতে গিয়েই ,আজ আমি আমার দাদুকে খুঁজে পেয়েছি । তাই তোমাকে মনে মনেই অনেক ধন্যবাদ জানাই। আর চাই পৃথিবীর যেখানেই থাকো সেখানেই খুব আনন্দে থাকো,খুব বড়ো শিল্পী হও, তোমার অটোগ্রাফ এর অপেক্ষায় আমি নিশ্চই থাকবো। এরপর বাড়ি ফিরে নিজের মা বাবাকে ফোন করে ডেকে পাঠায় । আবার তার পরিবার বিগত ২০ বছর পর সব ভুল বোঝাবুঝি কাটিয়ে উঠে ,এক হয় ।

আলোরানি মিশ্র

গল্পের কল্পনায়-
আলোরানির আরও কিছু লেখা- 

মা কে নিয়ে হৃদয় ছুঁয়ে যাওয়া গল্প 

ব্যর্থ প্রেমের ছোট গল্প 

হাসির গল্প- রোগা মানুষের উপাখ্যান 
আমাদের সাথে যুক্ত হওয়ার জন্য- 

ফেসবুক Group - গল্প Junction 

ফেসবুক- ছাড়পত্র

টেলিগ্রাম- charpatraOfficial

WhatsApp Group- ছাড়পত্র (২)

ভালো বাংলা গল্প। অপ্রকাশিত প্রেম। 1 awesome bengali story


Spread the love

Leave a Reply